Home Page Top

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি বিজ্ঞপ্তি ২০২০-২০২১

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি বিজ্ঞপ্তি ২০২০-২০২১ বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েব সাইট admissions.nu.edu.bd এ প্রকাশ করা হয়েছে। জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি নোটিশ ২০২১ সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করা হবে। জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রতিবছর সবচেয়ে বেশি সংখ্যক শিক্ষার্থী ভর্তি হয়। 
national-university-admission-circular

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় অনার্স ভর্তি ২০২০-২০২১

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় অধিভুক্ত কলেজসমূহে ২০২০-২০২১ শিক্ষাবর্ষে অনার্স ১ম বর্ষে ভর্তির প্রাথমিক আবেদন অনলাইনে শুরু হয়েছে। আগ্রহী প্রার্থীকে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি বিষয়ক ওয়েবসাইট থেকে অনলাইনে আবেদন ফরম পূরণ করতে হবে এবং প্রাথমিক আবেদন ফি কলেজ কর্তৃক নির্ধারিত মােবাইল ব্যাংকিং এর মাধ্যমে নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে জমা দিতে হবে। অনার্স ভর্তি কার্যক্রমে প্রার্থীদের SSC ও HSC পরীক্ষার ফলাফলের ভিত্তিতে প্রতিটি কলেজের জন্য আলাদাভাবে মেধা তালিকা প্রণয়ন করা হবে। এ শিক্ষাবর্ষে ভর্তিকৃত শিক্ষার্থীদের ক্লাস ১৫ সেপ্টেম্বর ২০২১ হতে শুরু হবে। 
জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি তথ্য ২০২০-২০২১
আবেদন শুরুঃ ২৮ জুলাই ২০২১ হতে
আবেদনের শেষ তারিখঃ ১৪ আগষ্ট ২০২১
ফি জমাদানের শেষ তারিখঃ ১৬ আগষ্ট ২০২১
ফলাফল প্রকাশঃ ১৫ সেপ্টেম্বরের পূর্বে
আবেদন ফিঃ ২৫০ টাকা
আবেদনের লিংকঃ admissions.nu.edu.bd

আবেদনের সাধারণ যোগ্যতা

ক) বাংলাদেশে স্বীকৃত যে কোন শিক্ষা বোর্ড বা উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের মানবিক শাখা থেকে ২০১৭/২০১৮ সালের এসএসসি ও সমমান পরীক্ষায় ন্যূনতম জিপিএ ২.৫ এবং ২০১৯/২০২০ সালের এইচএসসি ও সমমান পরীক্ষায় ৪র্থ বিষয়সহ ন্যূনতম জিপিএ ২.৫ প্রাপ্ত শিক্ষার্থীরা আবেদন করতে পারবে।
খ) বাংলাদেশে স্বীকৃত যে কোন শিক্ষা বোর্ড বা উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের বিজ্ঞান ও ব্যবসায় শিক্ষা শাখা থেকে ২০১৭/২০১৮ এসএসসি ও সমমান পরীক্ষায় ন্যূনতম জিপিএ ৩.০ এবং ২০১৯/২০২০ সালের এইচএসসি ও সমমান পরীক্ষায় ৪র্থ বিষয়সহ ন্যূনতম জিপিএ ২.৫ প্রাপ্ত শিক্ষার্থীরা আবেদন করতে পারবে।
গ) বাংলাদেশ কারিগরি শিক্ষা বোর্ড থেকে শুধুমাত্র এইচ.এস.সি. (ভোকেশনাল), এইচ.এস.সি. (বিজনেস‌ ম্যানেজমেন্ট) ও ডিপ্লোমা-ইন-কমার্স পরীক্ষায় উত্তীর্ণ শিক্ষার্থীরা ১ এর খ নং শর্তপূরণ সাপেক্ষে আবেদন করতে পারবে। অর্থাৎ তাদের ক্ষেত্রে এসএসসিতে ন্যূনতম ৩.০ এবং এইচএসসিতে ন্যূনতম ২.৫ জিপিএ লাগবে। 
ঘ) প্রার্থীদের উচ্চ মাধ্যমিক ও সমমান পরীক্ষায় পঠিত বিষয়সমূহ থেকে ভর্তি যোগ্য বিষয় নির্ধারণ করা হবে। উক্ত পঠিত বিষয়ে (২০০ নম্বরের) ন্যুনতম গ্রেড পয়েন্ট ৩.০ থাকতে হবে।
ঙ) ২০১৭/২০১৮ সালের ও লেভেল পরীক্ষায় তিনটি বিষয়ে 'বি' গ্রেডসহ অন্তত ০৪ (চার) টি বিষয়ে উত্তীর্ণ এবং ২০১৯/২০২০ সালের এ লেভেল পরীক্ষায় একটি বিষয়ে 'বি' গ্রেডসহ অন্তত ০২ (দুই)  টি বিষয়ে উত্তীর্ণ শিক্ষার্থীরা এ ভর্তি কার্যক্রমে অন্যান্য শর্ত পূরণ সাপেক্ষে আবেদন করতে পারবে। এ সকল আবেদনকারী প্রার্থীকে ডিন, ম্নাতকপূর্ব শিক্ষা বিষয়ক স্কুল, জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় বরাবর নির্ধারিত সময়ের মধ্যে সরাসরি আবেদন করতে হবে।
চ) বিদেশী সার্টিফিকেটধারী প্রার্থীদের ক্ষেত্রে বাংলাদেশ-এ স্বীকৃত যে কোন শিক্ষা বোর্ড কর্তৃক তাদের অর্জিত মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক পর্যায়ের নম্বর পত্রের সমতা নিরূপণ করা হলে তারাও এ ভর্তি কার্যক্রমে অন্যান্য শর্ত পূরণ সাপেক্ষে আবেদন করতে পারবে। এ সকল প্রার্থীকে ডিন, ম্লাতকপূর্ব শিক্ষা বিষয়ক স্কুল, জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় বরাবর নির্ধারিত সময়ের মধ্যে সরাসরি আবেদন করতে হবে।
ছ) জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে ২০১৯-২০২০ শিক্ষাবর্ষে স্নাতক (সম্মান), স্নাতক (সম্মান) প্রফেশনাল, স্নাতক (পাস) নিয়মিত বা প্রাইভেট কোর্সে কোন শিক্ষার্থী ২০২০-২০২১ শিক্ষাবর্ষে ১ম বর্ষ স্নাতক সেম্মান) শ্রেণিতে ভর্তি হতে পারবে না। তবে এ সকল শিক্ষার্থীরা ২০১৯-২০২০ শিক্ষাবর্ষের ভর্তি বাতিলপূর্বক ২০২০-২০২১ শিক্ষাবর্ষে ১ম বর্ষ স্নাতক (সম্মান) শ্রেণিতে ভর্তি হতে পারবে।
জ) একই শিক্ষাবর্ষে অথবা দুটি ভিন্ন শিক্ষাবর্ষে কোন শিক্ষার্থী স্নাতক (সম্মান), স্নাতক (সম্মান) প্রফেশনাল ও স্নাতক (পাস) নিয়মিত বা প্রাইভেট কোর্সে দ্বৈত ভর্তি হলে তার উভয় ভর্তি বাতিল বলে গণ্য হবে।
এসএসসি ও সমমান পরীক্ষার ন্যূনতম যোগ্যতা এইচএসসি ও সমমান পরীক্ষার ন্যূনতম যোগ্যতা
পরীক্ষার নাম পাসের সন জিপিএ পরীক্ষার নাম পাসের সন জিপিএ
এসএসসি (মানবিক) ২০১৭/২০১৮ ২.৫ এইচএসসি (মানবিক) ২০১৯/২০২০ ২.৫
এসএসসি (বিজ্ঞান ও ব্যবসায়) ২০১৭/২০১৮ ৩.০ এইচএসসি (বিজ্ঞান ও ব্যবসায়) ২০১৯/২০২০ ২.৫
বাংলাদেশ কারিগরি শিক্ষা বাের্ড থেকে  এইচ.এস.সি

আবেদনের সময়সূচি

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের আবেদনের তারিখ ২৮ জুলাই বিকাল ৪টা থেকে শুরু হয়ে ১৪ আগস্ট ২০২১ তারিখ রাত ১২টা পর্যন্ত চলবে। সংশ্লিষ্ট প্রার্থীকে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি বিষয়ক ওয়েবসাইট থেকে আবেদন ফরম পূরণ করতে হবে এবং প্রাথমিক আবেদন ফি বাবদ ২৫০/- (দুইশত পঞ্চাশ) টাকা কলেজ কর্তৃক নির্ধারিত মোবাইল ব্যাকিং এর মাধ্যমে ১৬ আগস্ট ২০২১ তারিখের মধ্যে অবশ্যই জমা দিতে হবে। এ শিক্ষাবর্ষে ভর্তিকৃত শিক্ষার্থীদের অনলাইন ক্লাস ১৫ সেপ্টেম্বর ২০২১ তারিখ থেকে শুরু হবে। এ ভর্তি কার্যক্রমে প্রার্থীদের এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষার ফলাফলের ভিত্তিতে প্রতিটি কলেজের জন্য আলাদাভাবে মেধা তালিকা প্রণয়ন করা হবে।
আবেদনের জন্য করণীয় গুরুত্বপূর্ণ তারিখ
অনলাইনে প্রাথমিক আবেদন ফরম পূরণ ও এর প্রিন্ট/পিডিএফ কপি সংগ্রহের ২৮/০৭/২০২১ থেকে ১৪/০৮/২০২১
প্রাথমিক আবেদন ফি বাবদ ২৫০/- দুইশত পঞ্চাশ) টাকা সংশ্লিষ্ট কলেজ কর্তৃক নির্ধারিত মোবাইল ব্যাংকিং এর মাধ্যমে জমা দেয়া ২৯/০৭/২০২১ থেকে ১৬/০৮/২০২১
কলেজ কর্তৃক অনলাইনে প্রাথমিক আবেদন ফরম নিশ্চয়ন করা ২৯/০৭/২০২১ থেকে ১৭/০৮/২০২১
কলেজ কর্তৃক আবেদনকারী প্রার্থীদের প্রাথমিক আবেদন ফি'র জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অংশ [প্রার্থী প্রতি ১৫০/-(একশত পঞ্চাশ) টাকা হারে] সংশ্লিষ্ট খাতে (ভর্তি ফান্ড) যে কোন সোনালী ব্যাংক শাখায় জমা দেয়া। এ লক্ষ্যে সংশ্লিষ্ট কলেজে লগ ইন এর মাধ্যমে Application Payment Info (Honours Reg.) অপশনে ক্লিক করে Pay Slip ডাউনলোড করতে হবে এবং এর ধ্রিন্ট কপি নিয়ে নিকট সোনালী ব্যাংক শাখায় নির্ধারিত ফি জমা দিয়ে রশিদ সংগ্রহ করতে হবে। ১৮/০৮/২০২১ থেকে ২৫/০৮/২০২১

ভর্তি পদ্ধতি ও মানবণ্টন

ক) প্রতিটি কলেজের জন্য আলাদাভাবে মেধা তালিকা তৈরী করে প্রার্থীদের পছন্দক্রম অনুযায়ী ১ম বর্ষ স্নাতক (সম্মান) শ্রেণির বিষয় বরাদ্দ দেয়া হবে। ফলে ভালো মানের কলেজে পছন্দের বিষয় নিয়ে পড়তে চাইলে আপনার এসএসসি ও এইচএসসি এর ফলাফল ভালো হতে হবে। 
খ) একই প্রতিষ্ঠান বা কলেজে একই বিষয়ে দুই বা ততোধিক আবেদনকারীর মেধাক্রম এক হলে সেক্ষেত্রে পর্যায়ক্রমে এ সকল আবেদনকারীর 
  • ৪র্থ বিষয়সহ এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষায় প্রাপ্ত জিপিএ'র যথাক্রমে ৪০% ও ৬০% 
  • প্রয়োজন হলে এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষার মোট প্রাপ্ত নম্বরের যথাক্রমে ৪০% ও ৬০% 
  • এর পরেও যদি দুই বা ততোধিক আবেদনকারীর মেধাক্রম এক হয়, তা হলে যার বয়স কম হবে তাকে  অগ্রাধিকার দিয়ে মেধাক্রম প্রণয়ন করা হবে।
গ) এ ভর্তি কার্যক্রম পর্যায়ক্রমে প্রথম মেধা তালিকা, শূন্য আসনের সাপেক্ষে দ্বিতীয় মেধা তালিকা, বিশেষ কোটা এবং রিলিজ স্লিপের (প্রয়োজনে একাধিকবার) মাধ্যমে সম্পন্ন করা হবে। ফলে প্রথমবার কারো নাম না আসলে বিচলিত হওয়া যাবে না।
ঘ) সংশ্লিষ্ট কলেজ User ID, Password এবং OTP ব্যবহার করে ভর্তির বিষয়ভিত্তিক ফলাফল দেখতে পারবে। আবেদনকারী প্রার্থীরা ভর্তি সংশ্লিষ্ট ওয়েবসাইট (www.nu.ac.bd/admissions) ও SMS (nu <space> athn <space> roll no টাইপ করে 16222 নাম্বারে সেন্ড করতে হবে) এর মাধ্যমে অথবা কলেজ থেকে ফলাফল জানতে পারবে।

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির আবেদন পদ্ধতি

১. ওয়েবসাইটে লগইন করাঃ আবেদনকারীকে ভর্তি বিষয়ক ওয়েবসাইটে (www.nu.ac.bd/admissions) Honours tab-এ গিয়ে Apply Now (Honors) অপশনে ক্লিক করতে হবে এবং ওয়েবসাইটে প্রদর্শিত তথ্য ছকে মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক/সমমান পরীক্ষার রােল নম্বর, শিক্ষা বাের্ড/বিশ্ববিদ্যালয়, পাসের সন ও একটি নিবন্ধিত মোবাইল নম্বর (নিজের বা অভিভাবকের) সঠিকভাবে এন্ট্রি দিতে হবে। উল্লেখ্য যে, জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের পক্ষ থেকে ভবিষ্যতে শিক্ষার্থীর শিক্ষা সহায়ক সকল তথ্য প্রদানের ক্ষেত্রে এই মোবাইল নম্বরটি ব্যবহার করা হবে। 
২. লিঙ্গ নির্ধারণঃ এ পর্যায়ে প্রার্থীর অনলাইনে সংরক্ষিত ডাটাবেজের তথ্য অনুযায়ী Gender প্রদর্শিত হবে। তবে কোন কারণে আবেদনকারীর তথ্য ছকে Male এর স্থলে Female বা Female এর স্থলে Male প্রদর্শিত হলে Click to Change অপশনে গিয়ে সঠিক লিঙ্গ নির্বাচন করতে হবে।
৩. কলেজ ও বিষয় সিলেকশনঃ এ পর্যায়ে আবেদনকারী তার ভর্তিযোগ্য (Eligible) বিষয়ের তালিকা দেখতে পাবে। আবেদনকারী তার পছন্দ অনুযায়ী বিভাগ ও জেলাওয়ারী যে কোন কলেজের নাম সিলেক্ট করলে সংশ্লিষ্ট কলেজে ১ম বর্ষ স্নাতক (সম্মান) শ্রেণীর অধিভুক্ত বিষয়সমূহের নাম ও আসন সংখ্যা দেখতে পাবে।
ওয়েবসাইটের তথ্য ছক থেকে পছন্দ অনুযায়ী একটি কলেজ সিলেক্ট করলে আবেদনকারী সংশ্লিষ্ট কলেজে তার ভর্তি যােগ্য (Eligible) বিষয়ের তালিকা দেখতে পাবে এবং এই তালিকা থেকে প্রার্থীকে সর্তকতার সঙ্গে তার প্রার্থিত বিষয়ের পছন্দক্রম নির্ধারণ করতে হবে। এই পছন্দক্রম অনুসারে মেধার ভিত্তিতে বিষয় বরাদ্দ দেয়া হবে।
৪. কোটায় আবেদনঃ মুক্তিযােদ্ধার সন্তান/আদিবাসি/প্রতিবন্ধী/পােষ্য কোটায় ভর্তি হতে ইচ্ছুক প্রার্থীকে তথ্য ছকের নির্দিষ্ট স্থানে তার জন্য প্রযােজ্য কোটা Select করতে হবে। কোটায় আবেদনের ক্ষেত্রে যথাযথ কর্তৃপক্ষের ইস্যুকৃত মূল সনদপত্র থাকতে হবে। একজন প্রার্থী এক বা একাধিক কোটায় যােগ্য হলে কোটার পছন্দক্রম নির্ধারণ করে দিতে হবে।
৫. ছবি সংযোজনঃ প্রাথমিক আবেদন ফরম পূরণের সময় প্রার্থীর পাসপোের্ট আকারে সম্প্রতি তােলা রঙ্গিন ছবি Scan করে আপলােড করতে হবে। ছবির মাপ ১২০X১৫০ পিক্সেল, ছবির ফরম্যাটঃ jpg এবং সর্বোচ্চ ফাইল সাইজঃ ৫০ কেবি হতে হবে। 
বি.দ্রঃ প্রার্থীর ছবি ব্যতীত অন্য কোন ছবি আবেদন ফরমে আপলােড করা হলে ঐ প্রার্থীর ভর্তি বাতিল করার অধিকার জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ সংরক্ষণ করবে।
৬. আবেদন চূড়ান্তকরণঃ সঠিক তথ্য ও ছবিসহ ছক পূরণ করে প্রথমে ফর্মটি Submit Application অপশনে ক্লিক করতে হবে। এ পর্যায়ে আবেদনকারীর রােল নম্বর ও পিন কোড প্রদর্শিত হবে এবং আবেদনকারীকে ফরমটি ডাউনলােড করে A4 সাইজের কাগজে প্রিন্ট (Print) করে নিতে হবে।
৭. আবেদন ফরম বাতিলকরণঃ আবেদন ফরম সংশ্লিষ্ট কলেজে জমাদানের পূর্বে যাচাই বাছাই করে নিতে হবে। আবেদন ফর্মে তথ্যগত ত্রুটি থাকলে টা সংশোধন করতে হবে। আবেদন ফরম সংশোধন করতে চাইলে প্রার্থীকে Applicant’s Login (Honours) অপশনে গিয়ে আবেদন ফরমের রােল নম্বর ও পিন এন্ট্রি দিতে হবে। এ পর্যায়ে আবেদনকারীকে Form Cancel/ Photo Change Option এ গিয়ে Click to Generate the Security key অপশনটি ক্লিক করতে হবে। এ সময়ে প্রার্থী তার আবেদন ফরমে উল্লিখিত ব্যক্তিগত মােবাইল নম্বরে SMS এর মাধ্যমে One Time Password (OTP) পাবে। এই OTP এন্ট্রি দিয়ে প্রার্থী তার আবেদন ফরমটি বাতিলপূর্বক নতুন করে আবেদন ফরম পূরণ করতে পারবে। এ লক্ষ্যে আবেদনকারীকে তার ব্যক্তিগত সঠিক মােবাইল নম্বর সতর্কতার সংগে আবেদন ফরমে এন্ট্রি দিতে হবে। তবে কলেজ কর্তৃক প্রাথমিক আবেদন ফরম নিশ্চয়ন করার পর তা আর বাতিল করা যাবে না। প্রার্থী ছবি পরিবর্তনের সুযােগ মাত্র একবারই পাবে।
৮. সংশ্লিষ্ট কলেজে ফর্ম জমা ও ফি প্রদানঃ আবেদনকারীকে প্রিন্ট করা প্রাথমিক আবেদন ফরমটির নির্ধারিত স্থানে নিজ হাতে স্বাক্ষর করতে হবে। এই আবেদন ফরমের সাথে প্রার্থীর মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক/ সমমান পরীক্ষার সত্যায়িত নম্বরপত্র, রেজিস্ট্রেশন কার্ডের সত্যায়িত কপি ও প্রাথমিক আবেদন ফি বাবদ ২৫০/- টাকা সংশ্লিষ্ট কলেজে নির্ধারিত সময়ের মধ্যে জমা দিতে হবে। কলেজ কর্তৃপক্ষ তাদের মোবাইল ব্যাংকিংয়ের মাধ্যমে আবেদনকারী শিক্ষার্থীদের আবেদন ফি জমা নিবে। প্রাথমিক আবেদন ফরমটির দ্বিতীয় অংশ কলেজ অধ্যক্ষ হতে দায়িত্বপ্রাপ্ত শিক্ষক স্বাক্ষর ও সীলসহ প্রার্থীকে ফেরত দিবে। কলেজ যে সকল প্রাথমিক আবেদন ফরম online-এ নিশ্চয়ন করবে সে সকল প্রার্থী তাদের মােবাইল নম্বরে SMS এর মাধ্যমে তা জানতে পারবে। প্রাথমিক আবেদন নিশ্চয়ন ব্যতীত কোন প্রার্থীই ভর্তির যােগ্য বলে বিবেচিত হবে না। কলেজে আবেদন পত্র জমা দেয়ার পরে প্রার্থী তার মােবাইল ফোনে SMS না পেলে বুঝতে হবে যে তার আবেদন ফরম কলেজ কর্তৃক নিশ্চয়ন করা হয়নি। এক্ষেত্রে প্রার্থীকে সংশ্লিষ্ট কলেজে নির্ধারিত সময়ের মধ্যে যােগাযােগ করতে হবে। ত্রুটিপূর্ণ ছবির জন্য কলেজ কর্তৃপক্ষ যেকোনো শিক্ষার্থীর আবেদন বাতিল করতে পারবে। 

আবেদন ও রেজিস্ট্রেশন ফি

২০২০-২০২১ শিক্ষাবর্ষে ১ম বর্ষ স্নাতক (সম্মান) শ্রেণিতে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃক নির্ধারিত ফিসের হার নিম্নরূপঃ
  • প্রাথমিক আবেদন ফিঃ ২৫০ টাকা
  • শিক্ষার্থী প্রতি রেজিস্ট্রেশন ফি = ৪৫০/- (চারশত পঞ্চাশ) টাকা
  • শিক্ষার্থী প্রতি ক্রীড়া ও সংস্কৃতি ফি = ২০/- (বিশ) টাকা বিভিন্ন ফিসের
  • শিক্ষার্থী প্রতি বিএনসিসি ফি = ৫/- (পাঁচ) টাকা
  • শিক্ষার্থী প্রতি রােভার স্কাউট ফি = ১০/- (দশ) টাকা
সর্বমোট রেজিস্ট্রেশন ফি = ৪৮৫ (চারশত পঁচাশি) টাকা 
তাছাড়া শিক্ষার্থী প্রতি ভর্তি বাতিল  ৭০০ (সাতশ) টাকা এবং ভর্তি পুনর্বহাল ফি ৭০০ (সাতশ) টাকা। 

কলেজ কর্তৃপক্ষের করণীয়

কলেজ আবেদনকারীর কাছ থেকে মোবাইল ব্যাংকিং এর মাধ্যমে প্রাথমিক আবেদন ফি বাবদ ২৫০/- (দুইশত পঞ্চাশ) টাকা জমা রেখে প্রাথমিক আবেদন ফরম অনলাইনে নিশ্চয়ন করবেন। কলেজ কর্তৃক প্রাথমিক আবেদন ফরম অনলাইনে নিশ্চয়ন করা না হলে পর প্রার্থী মেধা তালিকায় স্থান পাবে না। 
কলেজ প্রাথমিক আবেদন ফি'র জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অংশ [আবেদনকারী প্রতি ১৫০/- (একশত পঞ্চাশ) টাকা হারে] যে কোন সোনালী ব্যাংক শাখায় জমা দিবে। এ লক্ষ্যে সংশ্লিষ্ট কলেজকে Login এর মাধ্যমে Application Payment Info (Honours) অপশনে ক্লিক করে Pay Slip ডাউনলোড করতে হবে। Pay Slip এ ২০২০-২০২১ শিক্ষাবর্ষে সংশ্লিষ্ট খাতের সঞ্চয়ী হিসাব নম্বর- 0218100003245 উল্লেখপূর্বক মোট টাকার অংক লেখা থাকবে এবং এর প্রিন্ট কপি নিয়ে নিকটস্থ যে কোন শাখায় জমা দিয়ে রশিদ সংগহ করতে হবে। 
সংশ্লিষ্ট কলেজ প্রার্থীদের রেজিস্ট্রেশন ফি'র জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নির্ধারিত অংশ [প্রতি শিক্ষার্থী থেকে ৪৮৫/- চারশত পঁচাশি) টাকা হারে] যে কোন সোনালী ব্যাংক শাখায় জমা দিতে হবে। এ লক্ষ্যে সংশ্লিষ্ট কলেজ Login এর মাধ্যমে Application Payment Info (Honours) অপশনে ক্লিক করে Pay Slip ডাউনলোড করবে। Pay Slip এ ২০২০-২০২১ শিক্ষাবর্ষে মনাতক (সম্মান) “রেজিস্ট্রেশন ফি” খাতের সঞ্চয়ী হিসাব নম্বর- 0218100000134 উল্লেখপূর্বক মোট টাকার অংক লেখা থাকবে এবং এর প্রিন্ট কপি নিয়ে নিকটস্থ সোনালী ব্যাংকের শাখায় জমা দিয়ে রশিদ সংগ্রহ করবে।
পর্যালোচনাঃ জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি আবেদন করার পূর্বে আবেদন করার নিয়ম পড়ে নিন। দোকান থেকে আবেদন করার ক্ষেত্রে মোবাইল নম্বর ভালো করে চেক করে নিবেন এবং নিজের নম্বর দিবেন। পাশাপাশি লগইন পাসওয়ার্ড লিখে নিয়ে আসবেন। কারণ এটি পরে যেকোনো সময় কাজে লাগবে। আর বাসায় আবেদন করার ক্ষেত্রে গুগল ক্রোম ব্রাউজার ব্যবহার করবেন এখানে আপনার পাসওয়ার্ড অটোমেটিক সেইভ হয়ে যায়। ছবির ক্ষেত্রে খেয়াল রাখবেন আপনার মুখমণ্ডল যাতে বুঝা যায়। বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি পরীক্ষার আপডেট পেতে আমাদের সকল বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি পরীক্ষার তারিখ পোস্টটি পড়ুন। তাছাড়া জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে আবেদন করার সময় বাড়ানো হয়েছে। জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি সার্কুলার পড়ে আবেদন করতে পারেন।  
* Please Don't Spam Here. All the Comments are Reviewed by Admin.
  1. bou ছাত্রছাত্রী‌দের এড‌মিড কা‌র্ডে তো রে‌জি‌স্টেসন নাম্বার নাই, আর রে‌জি‌স্টেসন নাম্বার ছাড়া তো আ‌বেদন গ্রহন কর‌তে‌ছেনা। তাহ‌লে তা‌দের আ‌বেদ‌নের জন‌্য করনীয় কি?

    উত্তরমুছুন
    উত্তরগুলি
    1. ভাইয়া আপনার এসএসসি'র রেজিস্ট্রেশন নাম্বার যেটা আছে ওইটাই দিবেন। জেএসসি থেকে এইচএসসি অব্দি শুধুমাত্র রোল নম্বর চেঞ্জ হয় কিন্তু রেজিস্ট্রেশন নাম্বার একই থাকে।
      কোন সমস্যা হলে আমাদের ফেসবুক পেজে নক দিবেন অবশ্যই।

      মুছুন
  2. খুব সুন্দর গুরুত্বপূর্ণ তথ্য। ধন্যবাদ প্রকাশদেরকে

    উত্তরমুছুন
  3. কোন নাম্বারে মোবাইল ব্যাংকিং এর মাধ্যমে প্রাথমিক আবেদনের ফি পে করবো?

    উত্তরমুছুন
    উত্তরগুলি
    1. ভাইয়া, এটা আপনি যে কলেজে আবেদন করবেন তারা বলে দিবে। উদাহরণস্বরূপ, আপনি "ক" কলেজের জন্য মনোনীত হলে সেখান থেকে বলে দিবে। পাশাপাশি আপনি উক্ত কলেজের ওয়েবসাইটে গেলে নোটিশ আকারে পেয়ে যাবেন। যেহেতু কয়েক হাজার কলেজ আছে তাই আলাদা করে নম্বর দেওয়া সম্ভব হয়নি। যদি সমস্যার সম্মুখীন হন আমাদের ফেসবুক পেজে নক করবেন।

      মুছুন
  4. ভাইয়া আমি খুব বড় ধরনের একটা সমস্যায় পরেছি দয়া করে আপনার নাম্বার টা দিবেন

    উত্তরমুছুন
    উত্তরগুলি
    1. ভাইয়া আমাদের ফেসবুক পেইজে ম্যাসেজ করে বিস্তারিত জানান। সমাধান দিতে সহজ হবে।

      মুছুন
  5. ভাই আমি ভুল করে একটি কলেজে আবেদন করেছি। কলেজ থেকে ও ফ্রম নিশ্চন করেছে এমন অবস্থায় আমি কি ভাবে ফ্রমটি বাদ দিব

    উত্তরমুছুন
    উত্তরগুলি
    1. জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি বাতিল করার নিয়মঃ
      আপনি যে কলেজ বা বিশ্ববিদ্যালয়ে নিশ্চায়ন করেছেন সে কলেজে আপনার ডিপার্টমেন্টের অফিসে গিয়ে বিস্তারিত বলবেন তারা আপনার ভর্তি বাতিলের ব্যবস্থা নিবে, কারণ এটা সরকারি নিয়ম। এর জন্য আপনাকে ৭৪৬ টাকা (সরকারি কলেজ হলে) ভর্তি বাতিল ফি দিতে হবে। আর কলেজ বেসরকারি হলে প্রায় ১ বছর ৬ মাসের বকেয়া + ৭৪৬ টাকা দিতে হবে (কলেজভেদে উঠানামা করতে পারে)। তবে করোনা ভাইরাসের কারণে কলেজে যেতে না পারলে তাদের ওয়েবসাইট থেকে ফোন নম্বর সংগ্রহ করুন এবং ফোন দিয়ে তাদেরকে জানান। ভর্তি বাতিল করা সহজ প্রক্রিয়া চিন্তার কিছু নেই।

      মুছুন
  6. এই মন্তব্যটি একটি ব্লগ প্রশাসক দ্বারা মুছে ফেলা হয়েছে।

    উত্তরমুছুন
  7. ভাই আপনার ফেসবুক পেজের নাম কি

    উত্তরমুছুন
    উত্তরগুলি
    1. এখানে ক্লিক করুন
      তাছাড়া ওয়েবসাইট এর একদম নিচে ফেসবুক আইকনে ক্লিক করলেও পাবেন ভাইয়া।

      মুছুন
  8. কাগজ পএের সাথে ২৫০ টাকা ফি কলেজে জমা দিলে হবে না?? রকেট ছাড়া???

    উত্তরমুছুন
    উত্তরগুলি
    1. জ্বি হবে ভাইয়া। তবে বেসরকারি কলেজ হলে আরও দিতে হবে। সরকারি কলেজ হলে খুব সহজ ভর্তি বাতিল করা।

      মুছুন

Top Post Ad

Below Post Ad

Ads Area